জেনে নিন ওয়ার্ডপ্রেস সম্বন্ধে অবাক করা কিছু তথ্য

ওয়ার্ডপ্রেস হলো জনপ্রিয় অপেন সোর্স কনটেন্ট ম্যানেজম্যান্ট সিস্টেম। বর্তমানে শুধু ব্লগিং এর জন্য নয় বরং নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, অনলাইন মার্কেটিং, প্রচার-প্রচারণা সহ বিভিন্ন কাজের ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে করা হচ্ছে। উবার, মাইক্রোসফট নিউজ, ফেসবুক নিউজরুম প্লেস্টেশন এর মতো নামিদামি কম্পানি ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করছে। অবাক করা ব্যাপার হলো ক্রিয়েটিভ মাইন্ডস এর তথ্য মতে এ পর্যন্ত প্রায় ৪৫৫ মিলিয়ন বা ৪৫.৫ কোটি ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে, যা কিনা গোটা বিশ্বের মোট ওয়েবসাইটের প্রায় ৩৫ শতাংশ, যার সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে।

ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহারঃ

ডাব্লুপিবিগিনার এর মতে বিশ্বের ১৪.৭ শতাংশ টপ ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করছে। এইসকল টপ ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেস যে শুধু তাদের প্রধান ডোমেইনেই ব্যবহার করছে বিষয়টা তা না। এর মধ্যে অনেব সাইট তাদের সাব ডোমেইনে ব্যবহার করছে। উদাহরণ সরূপ বলা যায় মাইক্রোসফট নিউজ এর কথা। আবার সনি মিউজিক, স্নুপ ডগ এর মতো ওয়েবসাইটে প্রধান ডোমেইনেই ব্যবহার করছে ওয়ার্ডপ্রেস।

ওয়ার্ডপ্রেস সাইট
ছবিঃ ওয়ার্ডপ্রেস

ভাষাঃ

ওয়ার্ডেপ্রেসের ব্লগ সাইটগুলিতে ১২০টির বেশি ভাষা ব্যবহার করে আর্টিকেল লিখা হয়। আপনি এখন এই আর্টিকেলটি যে সাইটে পড়ছেন সেটিও একটি ব্লগ সাইট। এইসকল সাইটগুলোতে প্রতিমাসে প্রায় ১৩৬.২ মিলিয়ন বা ১৩.৬২ কোটি ব্লগ আর্টিকেল এবং ৭৭.৭ মিলিয়ন বা ৭.৭৭ কোটি কমেন্ট করা হয়। সবথেকে বেশি ৭১% ইংরেজী ভাষা ব্যবহার করে ওয়ার্ডেপ্রেসে ব্লগ লিখা হয়। এর পরের অবস্থান গুলোতে রয়েছে যথাক্রমে স্প্যানিশ ভাষা ৪.৭%, ইন্দোনেশিয়ান ভাষা ২.৪%, পর্তুগিজ(ব্রাজিল) ভাষা ২.৩%, ফরাসি ভাষা ১.৪% ইত্যাদি। ওয়ার্ডপ্রেস সাইট

অপেন সোর্স সিএমএসঃ

এছাড়াও অপেন সোর্স কনটেন্ট ম্যানেজম্যান্ট সিস্টেম গুলোর মধ্যে রয়েছে জুমলা, দ্রুপাল, টাইপো৩ ইত্যাদি। এইসকল অপেন সোর্স কনটেন্ট ম্যানেজম্যান্ট সিস্টেম গুলোর মধ্যে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে ওয়ার্ডপ্রেস। ওয়েবসাইট বিল্ডারের তথ্য মতে জুমলার চেয়ে ১০ গুণ এবং দ্রুপাল এর চেয়ে ৮.৯ গুণ বেশি জনপ্রিয় ওয়ার্ডপ্রেস।

ওয়ার্ডপ্রেস থিম-প্লাগিনঃ

থিম এবং প্লাগিনকে ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের প্রধান এলিমেন্ট বলা যেতে পারে। কারণ প্লাগিন ছাড়া ওয়ার্ডপ্রেস সাইট তৈরি করা গেলেও থিম ছাড়া সাইট তৈরি করা সম্ভব নয়। বিভিন্ন ফিচার্চস সমৃদ্ধ প্রিমিয়াম থিম এবং প্লাগিন ব্যবহার করতে আপনাকে লাইসেন্স সহ কিনা লাগবে। তবে ওয়ার্ডপ্রেসের ডাইরেক্টরিতে ৫৮০০ টিরও বেশি থিম এবং ৫০,০০০ এর প্লাগিন রয়েছে যা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ব্যবহার করা যাবে।ওয়ার্ডপ্রেস সাইট

উপার্জনঃ

ওয়ার্ডপ্রেস ভালোভাবে জানা থাকলে উপার্জন করা সম্ভব। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সার, ফাইবার, আপওয়ার্ক ইত্যাদি মার্কেটপ্লেসে ওয়ার্ডপ্রেসে নিয়ে নিয়মিত হাজার হাজার জব পাবলিশ হচ্ছে। যদিও এইসকল ফ্রিল্যান্সিং সাইটগুলোতে কাজ পেতে বেশ কম্পিটিশন এবং স্কিল থাকা জরুরী। যাতে বায়ারদের যেকোনো রিকোয়ারম্যান্টস পূরণ করতে পারেন। অবাক করা বিষয় হলো এইসকল সাইটে ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপারদের প্রতি ঘন্টায় গড়ে প্রায় ২০$-১০০$ ডলার দেয়া হয় বাংলাদেশী মুদ্রাতে যার মান ১৬০০৳-৮০০০৳ টাকা। এছাড়াও ভালো কন্টেন্ট লেখক হলে নিজে একটি ওয়ার্ডপ্রেস সাইট খুলে ইউনিক ব্লগ আর্টিকেল লিকা শুরু করেদিন। ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে গুগল এডসেন্স পাওয়া সম্ভব এবং আপনার সাইট র‌্যাংক করলে এডসেন্স থেকেও উপার্জন করতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ

ওয়ার্ডপ্রেস এর ৫ টি সাধারণ সমস্যা এবং তার সমাধান

একমাসের জন্য নেমচিপ ফ্রি হোস্টিং, কোনো পেমেন্ট মেথড লাগবেনা

যেভাবে কম্পিউটারে জাভা সেটাপ করবেন

About Begiz

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: